রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী কি, কেনো আর কি করে??


রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী – আর ডি এন Royal District Noakhali – RDN
নোয়াখালী জেলার সব থেকে জনপ্রিয় ও জনবহুল সামাজিক উন্নয়নমূলক ফেইসবুক গ্রুপ রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী – আর ডি এন – নোয়াখালী জেলা ভিত্তিক একটি সামাজিক সংগঠন। “উদ্যোগে একতা, প্রত্যয়ে সততা” এই শ্লোগান নিয়ে যার যাত্রা শুরু ২০১৭ সালের ১৫ই জুলাই। এই উদ্যোগ মূলত শুরু হয় ফেইসবুকের মাধ্যেমে। আর ডি এন ফেইসবুকের একটি গ্রুপ যা মূলত নোয়াখালী জেলা ভিত্তিক বিভিন্ন ধরনের সামাজিক ও শিক্ষামূলক কার্যক্রমের সাথে জড়িত। সূচনা লগ্ন থেকেই বিভিন্ন সামাজিক ও শিক্ষামূলক কার্যক্রমে এই গ্রুপের ৮জন এডমিন এবং প্রায় ৫০ জনের লাইট ও ভলেন্টিয়ার দল নিয়োজিত রয়েছে। এই গ্রুপের মেম্বার দেড় লক্ষের বেশি এবং দিন দিন এটি বাড়ছে। এই গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা তপু সৌমেন, বর্তমানে তিনটি প্যানেলে এই গ্রুপ কাজ করছে ১। এডমিন প্যানেল ও ২। RDN Light ও ৩। ভলেন্টিয়ার প্যানেল। এ যাবত কালে এই গ্রুপ অসহায় দরিদ্র মানুষের পাশে যেমন ছিলো ঠিক তেমন দরিদ্র অসুস্থ রোগী যারা অর্থের অভাবে চিকিৎসা পাচ্ছিলো না তাদের পাশেও ছিলো তেমনি এতিম ও দরিদ্র শিক্ষার্থীদের পাশেও ছিলো ছায়ার মত এবং ভবিষ্যতেও সাহায্যের হাত সম্প্রসারিত করতে চায়।

মিশনঃ সামাজিক ও শিক্ষামূলক সহযোগীতার মাধ্যমে নোয়খালী জেলার অসহায়, দরিদ্র ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষের কল্যানে কাজ করে যাওয়া।

ভিশনঃ
১। দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিতের কল্যাণে কাজ করা।
২। শিক্ষার প্রসারে কাজ করে যাওয়া।
৩। সামাজিক যেকোন মহতি উদ্যোগে প্রিয় জেলার কল্যাণে কাজ করে যাওয়া।

আমরা সারা বছর জুড়ে কি করিঃ
🌷 বিভিন্ন পাবলিক স্থানে পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী ও বিভিন্ন শিক্ষাংগনে পরিচ্ছন্ন শিক্ষাংগন পরিচালনা
🌷 ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসে স্টেডিয়ামে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম পরিচালনা
🌷 দরিদ্র মেধাবীদের শিক্ষার খরচ জোগান, শিক্ষা উপকরণ বিতরন
🌷 শীতবস্ত্র বিতরণ
🌷 রক্তদান
🌷 রোজায় এতিমখানায় ইফতার আয়োজন করা
🌷 দরিদ্র পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ
🌷 পথ শিশুদের ঈদের পোষাক বিতরণ
🌷 বৃদ্ধাশ্রমে ঈদের পোষাক বিতরণ ও ইফতার করা
🌷 দরিদ্র রোগীদের আর্থিক সহায়তা প্রদান
🌷 বিজয় মেলায় গ্রুপের কর্মকাণ্ডের প্রদর্শনী
🌷 প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন
🌷 ফেইসবুকে নোয়াখালী, নোয়াখালীভিত্তিক সামাজিক সংগঠনগুলোর মিলনমেলা
🌷 নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি-ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের দিকনির্দেশনা, আবাসন ও খাবার সুবিধা প্রদানে সহায়তা
🌹 এছাড়াও আমরা সারাবছর জুড়ে বিভিন্ন সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন পরিচালনা করে থাকি।

গ্রুপের লিংকঃ https://www.facebook.com/groups/rdnoakhalibd

 

 

এডমিন ও মডারেটর প্যানেলঃ
১। সৌমেন দে তপু – এডমিন ও প্রতিষ্ঠাতা
২। ফাহমিদা জেরিন – এডমিন
৩। সুব্রত পাল – এডমিন
৪। ফজিলাতুন মুন্না – এডমিন
৫। তৌসিফ আহমেদ – মডারেটর
৬। কাদের রাসেল – মডারেটর
৭। রনি শীল – মডারেটর

ভলেন্টিয়ার তথা লাইট টিম প্যানেলঃ
এডমিন ছাড়াও আমাদের একটি শক্তিশালী দল আছে যারা RDN Light নামে পরিচিত তারা আমাদের বিভিন্ন কার্যক্রমে স্বেচ্ছায় এগিয়ে আসে এবং মূলত এদের হাত ধরেই আমাদের সকল ভাল কাজগুলো সম্পাদিত হয়। RDN Light ছাড়াও আমাদের কিছু ভলেন্টিয়ার রয়েছে যারা নিয়মিত না কিন্তু গ্রুপের সাথে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। সব মিলিয়ে প্রায় ৫০ জনের মতো একটা শক্তিশালি দল আমাদের আছে।

১. আল বায়েজীদ
২. অনিক সরকার
৩. আরিফুল ইসলাম
৪. কাদের রাসেল
৫. রফিক উল্যাহ মাহমুদ রাফী
৬. মাসুম জামান
৭. সামিউল সামি
৮. রনি শীল রুপক
৯. নাদিয়া সুলতানা
১০. জান্নাতুল ফেরদাউস লাবণী
১১. রাজিয়া সুলতানা বৃষ্টি
১২. কামরুন নাহার আঁখি
১৩. ইমতিয়াজ ইফতু
১৪. সোহেল উদ্দিন রনি
১৫. মাহফুজুর রহমান
১৬. মাহফুজ বিয়েল

আমাদের গ্রুপ পরিচালনার কিছু নিয়মঃ

ফেইসবুকের বর্তমান আপডেট ও গ্রুপ পরিচালনার কিছু নীতিমালায় পরিবর্তন হওয়ায় আমাদের গ্রুপের নিয়মাবলী পরিবর্তিত হলো, ভালো করে নিয়মগুলো পড়ে নিন উক্ত নিয়মাবলীর বাইরে গেলে কোন পোস্টই এপ্রুভ হবে না এবং কোন ধরনের কারন দর্শানো হবে নাঃ

১। সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও ধর্মীয় মূল্যবোধকে আঘাত করে এমন বা বিতর্ক সৃষ্টি করে এমন কোন ছবি, বক্তব্য, মন্তব্য, পোস্ট, কমেন্ট কোন ভাবেই এপ্রুভ করা হবে না, কেবলমাত্র ধর্মীয় বানী গ্রহণযোগ্য হতে পারে।

২।। যেকোন ধরনের রাজনৈতিক পোস্ট কোন ভাবেই এপ্রুভ হবে না।

৩। জাতি, ধর্ম, বর্ণ, জেলা, নারী ও পুরুষকে নিয়ে করা ট্রল, ফান পোস্ট ও বিতর্কিত পোস্টদাতা ও কমেন্টকারীকে বিনা নোটিশে ব্যান করা হবে।

৪। কোন ভাবেই অন্য কোন প্রোফাইল, পেইজ/ গ্রুপ থেকে নেয়া পোস্ট যাতে সেই পেইজ/ গ্রুপের লোগো আছে বা নাম দেখা যায় এমন কোন পোস্ট গ্রুপে এপ্রুভ হয় না। ইউটিউব লিংক, অখ্যাত পত্রিকা বা ওয়েবসাইটের নির্ভরযোগ্য সুত্র ছাড়া শেয়ার করা পোষ্ট এপ্রুভ হবে না।

৫। মজার ছলে বা উদ্দেশ্যমূলক ভাবে নারী বা পুরুষ কে আক্রমন করে, হেয় করে করা পোষ্ট কোন ভাবেই গ্রহন যোগ্য নয়।

৬। কমেন্ট বিষয়ভিত্তিক হতে হবে। এক পোস্টের মধ্যে শুধু শুধু অন্য প্রসঙ্গ টেনে এনে বিবাদ সৃষ্টি করা মেম্বারকে গ্রুপ থেকে ব্যান করা হবে।

৭। নোয়াখালী বা যেকোন জেলাকে নিয়ে হেয় বা সম্মান ক্ষুন্ন হয় এমন কিছু পোষ্ট করলে তাকে বিনা নোটিশে ব্যান করা হবে।

৮। কারো লেখা হুবুহু কপি করে ক্রেডিট ছাড়া পোস্ট করলে এবং কেউ যদি তা রিপোর্ট করে তবে বিনা নোটিশে কপি করা পোস্টদাতাকে গ্রুপ থেকে ব্যান করা হবে।

৯। ব্যক্তিগত কোন ছবি, পোস্ট ও বিজ্ঞাপন গ্রহণযোগ্য নয়।

১০। কোন ধরনের ভিডিও যা আপনার নিজের নয় বা কপিরাইট ইস্যু আছে এমন কোন ভিডিও ডাইরেক্ট পোস্ট করলেও তা এপ্রুভ হবে না, কারন ফেইসবুকের কমিউনিটি গাইডলাইন অনুযায়ী এটি গ্রহণযোগ্য না।

১১। পোস্ট করার পর যদি কেউ পোস্ট এডিট করে তার নোটিফিকেশন আমরা পাই, সেই ক্ষেত্রে তাকে সাথে সাথে ব্যান করা হবে।

১২। গ্রুপের কোন পোষ্ট, কমেন্ট, ছবি আপনার চোখে দৃষ্টিকটু মনে হলে এডমিন কে সাথে সাথে জানান। পোস্টের পাশে ক্লিক করে “রিপোর্ট টু এডমিন” অপশনে ক্লিক করে রিপোর্ট করুন।

১৩। গ্রুপের সহযোগীতায় ব্লাড সংগ্রহ করতে হলে আপনাকেও গ্রুপের অন্যদের প্রয়োজনে এগিয়ে আসতে হবে। রক্ত চেয়ে পোষ্ট দিলে অবশ্যই বিস্তারিত লিখবেন (রোগীর ধরন, কোথায় ভর্তি আছে, রক্তের গ্রুপ, যোগাযোগের নম্বর)।

১৪। কোন ব্যাবসায়িক উদ্দ্যেশে কিংবা বিজ্ঞাপন প্রচারের উদ্দ্যেশে পোস্ট দেওয়ার আগে এডমিনের অনুমতি নিন। ** এই ক্ষেত্রে আমাদের অনুদান প্রদান সাপেক্ষে গ্রুপে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য পিন পোস্ট ও এডমিন পোস্টের ব্যবস্থা আছে এই ব্যপারে গ্রুপের এডমিনদের সাথে যোগাযোগ করুন। বিজ্ঞাপন থেকে প্রাপ্ত অর্থ গ্রুপের বিভিন্ন প্রজেক্টে ব্যয় করা হবে।

সকলের সহযোগীতায় সুন্দর ভাবে এই গ্রুপটি পরিচালনা করতে চাই, যেহেতু নোয়াখালী আমাদের সকলের প্রিয় জেলা। এই জেলার সম্মান রক্ষার দায়িত্ব আমাদের সকলের তাই সকলের কাছে বিনীত অনুরোধ এই নিয়ম মেনে পোস্ট করুন। অনেক সময় ট্রেন্ডিং বিষয়ে একই ধরনের পোস্ট একাধিকবার করা হয় সেক্ষেত্রে প্রথম একটি পোস্ট এপ্রুভ হয়ে গেলে একই ধরনের পোস্ট নিয়মমতো হলেও আর এপ্রুভ করা হয় না। আর যদি মনে করেন এই নিয়ম মানার পরও আপনার পোস্ট এপ্রুভ হয়নি সেক্ষেত্রে আপনার পোস্টের স্ক্রিনশট সহ আমাদেরকে জানান।

এ যাবত কালে নোয়াখালী জেলাতে আমাদের কিছু কাজঃ
আমরা আমাদের গ্রুপের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য মোতাবেক আজ অবধি বিভিন্ন সহায়তা কার্যক্রম নিয়েছি গ্রুপের পক্ষ থেকে। এক একটি সহায়তার উদ্যোগ এক একটি গল্প আমাদের জন্য, যাতে একাধারে মিশে আছে দুঃখ, আনন্দ আর উৎসাহ।

সাঁকো – সাঁকো হলো রক্ত দাতা আর রক্ত গ্রহীতার মধ্যে সেতু বন্ধনের একটি মাধ্যম। শুরুতে আমরা গ্রুপে পোস্টের মাধ্যমে রক্ত গ্রহীতাদের চাহিদা মোতাবেক পোস্ট করে রক্ত সংগ্রহ করতে সাহায্য করতাম। ২৮-০৮-২০১৭ আমরা শুরু করি নোয়াখালী জেলার জন্য আমাদের বানানো সব থেকে বড় রক্তের তথ্য ব্যাংক বানানোর কাজ যা চলমান। এট একটি ডাটাবেস যেখানে বিভিন্ন রক্ত দাতার তথ্য থাকবে। সাঁকো এর অনলাইন ঠিকানাঃ http://rdn.podatik.com

সুজন দাশ – এটি আমাদের গ্রুপের প্রথম আর্থিক সহায়তা ও কোন অসহায় মানুষের কল্যাণে কাজ করা। ১৬-০৯-২০১৭ তারিখে আমরা নোয়াখালী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন দরিদ্র নরসুন্দর সুজন দাশের চিকিৎসা বাবদ আর্থিক সহায়তা করি এবং তার ঔষধের ব্যাপারে সাহায্য করি।

সুজন দাশ
বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/photo.php?fbid=1688150797894589&set=gm.345777872515108&type=3&ifg=1

শীত বস্ত্র বিতরণ – এটি ছিলো আমাদের গ্রুপের প্রথম বড় কোন উদ্যোগ। ০৮-১২-২০১৭ নোয়াখালী জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের দরিদ্র অসহায় মানুষের মাঝে আমরা গ্রুপের পক্ষ থেকে প্রায় ২৫০ কম্বল বিতরণ করি সুবর্নচর এলাকায়। এই উদ্যোগে এগিয়ে আসেন আমাদের গ্রুপের সম্মানীত মেম্বাররা।

আমাদের শীতবস্ত্র বিতরণের খবর আসে একটি অনলাইন পত্রিকায়ঃ http://gg.gg/ax7aq

সাইফুল ইসলাম – ২০১৭ সালের শেষ উদ্যোগ ছিলো। ১২-১২-২০১৭ তারিখে সুবর্নচর এলাকার দরিদ্র মেধাবী ছাত্র সাইফুল ইসলামকে গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিস্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে সহায়তা, তার ভর্তির সকল আর্থিক সহায়তা (১৫০০০/-) প্রদান।

পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম – আমরা ডেটল বাংলাদেশ ও চ্যানেল আই আয়োজিত “পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ” সামাজিক উদ্যোগ থেকে উদ্ভুদ্ধ হয়ে গ্রুপের পক্ষ থেকে নোয়াখালী জেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়, কলেজ ও মাদ্রাসার জন্য এক ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নেই – “পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন” যার মাধ্যমে আমরা ছড়িয়ে দিতে চাই পরিচ্ছন্নতার বার্তা একেবারে কোমলমতি শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে তরুন যুবকটির কাছে। শিশুরা দেশের ভবিষ্যৎ আর এদেরকে যদি সঠিক শিক্ষা দেয়া যায় তারা সেই শিক্ষা ছড়িয়ে দিবে তাদের পরিবারে, বন্ধুদের মাঝে সর্বোপরী দেশের কল্যাণে। আমাদের মূল লক্ষ হলো একটি শিক্ষাঙ্গন পরিচ্ছন্ন হওয়া মানে এর সাথে সাথে যত শিক্ষার্থী আছে সকলের পরিবার ও তাদের নিজদের মানসিকতার পরিবর্তন করে সমগ্র নোয়াখালী জেলায় এই পরিচ্ছন্নতার বার্তা পৌঁছে দেয়া। সেই উদ্যোগের প্রথমেই ছিলো ১০-০২-২০১৮ তারিখে নোয়াখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, সদর নোয়াখালী। প্রায় ৪ শতাধিক শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শিক্ষকদের অংশগ্রহনে আমাদের প্রায় অর্ধ দিনের “পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন” উদ্যোগটি বেশ সফল ভাবে সম্পন্ন হয় যা পরবর্তীতে চ্যানেল আইয়ে ডেটল পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ অনুষ্ঠানে দেখানো হয়। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমরা ছাত্র ছাত্রীদের তার নিজের ক্লাসরুম পরিচ্ছন্ন রাখার ব্যাপারে সচেতন ও ডেমো দেয়া হয়। তাদেরকে মূলত আমরা একটা প্রতিযোগীতায় নিয়ে যাই যাতে করে সকলের মধ্যে উৎসাহ কাজ করে। এরপর বিদ্যালয়ের খেলার মাঠ পরিস্কার করা হয় একদল ছাত্র ছাত্রীদের প্রতিযোগীতামূলক অংশগ্রহণের মাধ্যমে। তাদেরকে আরো পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে বিস্তারিত শেখানো হয় সাথে সাথে তাদেরকে হাত ধোঁয়ার সঠিক কৌশল শেখানো হয়। সবশেষে সভাপতি, প্রধানশিক্ষক ও এডমিনদের শুভেচ্ছা বিদায়ী বক্তব্য দিয়ে শেষ হয় এই অনুষ্ঠান যা আগামীতে নোয়াখালী জেলার মোট ১৪টি শিক্ষাঙ্গনে পর্যায়ক্রমে একই ভাবে পরিচালিত হবে।

বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/414985175594377/

ইয়াসিন আরাফাত – এই বাচ্চাটির বয়স ৬ মাস মাত্র এতো অল্প বয়সেই আক্রান্ত হয়েছিলো বেশ জটিল শিশু রোগে যা ডাক্তাররা খুঁজে বের করার আগেই চলে যেতে হয় না ফেরার দেশে। আমরা সাধ্যমত চেষ্টা করি বাচ্চাটির সকল চিকিৎসার ব্যপারে। বাচ্চাটির বাবা ছিলো প্রতিবন্ধী, মা মানুষের বাসায় কাজ করতো, ভীষণ দরিদ্র পরিবার। চিকিৎসার প্রাথমিক সকল খরচ আমরা গ্রুপের পক্ষ থেকে বহন করি। ১০-০২-২০১৮ তারিখে তার পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হয় আর্থিক সহায়তা, কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে শেষ অব্দি বাঁচানো যায় নি ছেলেটিকে।


ইয়াছিন আরাফাত
বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/404405113319050/

হাসিনা ফেরদৌস – বেগমগঞ্জ জয়াগ কলেজের অধ্যাপক হাসিনা ফেরদৌস ম্যাডাম, তিনি ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত, ১৬-০৪-২০১৮ তারিখে উত্তরায় তার অস্থায়ী ঠিকানায় আমরা গিয়ে গ্রুপের পক্ষ থেকে কিছু আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়। তিনি বর্তমানে ভালো আছেন।

বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/rdnoakhali/photos/gm.421265211633040/1591943834187858/?type=3&ifg=1

বিভেদ ভুলে ইফতার, সবার জন্য ইফতার – ২০১৮
রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপ আয়োজিত এই বারের রোজা ও ঈদে অসহায় দরিদ্র মানুষের কল্যাণে নেয়া বিভিন্ন উদ্যোগের অংশ ছিলো নিচের কিছু উদ্যোগঃ


আমাদের আয়োজনে নোয়াখালীতে একটি মাদ্রাসায় ইফতার

১। ৪টা এতিমখানা ও মাদ্রাসায় এতিমদের ইফতার, রাতের খাবার ও সেহরি আয়োজনঃ
আমরা মোট ৪টা এতিমখানা ও মাদ্রাসায় প্রায় ৩০০ এতিমদের ইফতার, রাতের খাবার ও সেহরি আয়োজন করি।
ক) জামিয়া ইসলামিয়া নূরিয়া কাওমী মাদ্রাসা ও এতিম খানায় ছিলো আমাদের প্রথম আয়োজন। – https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/445085565917671/
খ)আল জামিয়া দারুল উলুম মাদ্রাসা ও এতিম খানায় ছিলো আমাদের ২য় আয়োজন। – https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/446762839083277/
গ)জামিয়া ইসলামিয়া তাহফীযুল কুরআন মাদরাসায় ছিলো আমাদের ৩য় আয়োজন। – https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/448009818958579/
ঘ)আজিজিয়া মুসলিম এতিমখানায় ছিলো আমাদের ৪র্থ আয়োজন। – https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/449555115470716/

২। ২০টি অসহায় দরিদ্র পরিবারকে সহায়তাঃ
আমরা মোট ২০টি অসহায় দরিদ্র পরিবারের হাতে তুলে দেই ১৫টি রোজার সমপরিমান বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি:
ছোলা বুটঃ ২ কেজি
পেঁয়াজঃ ২ কেজি
হলুদের গুড়াঃ ১ প্যাকেট ( ২০০ গ্রাম)
মরিচের গুড়াঃ ১ প্যাকেট ( ২০০ গ্রাম)
লবনঃ ১ প্যাকেট ( ১ কেজি)
মুড়িঃ ১ কেজি
খেজুরঃ ৫০০ গ্রাম
সয়াবিন তেলঃ ১ লিটার
চিনিঃ ১ কেজি
গুড়া দুধঃ ১ প্যাকেট ( ২৫০ গ্রাম)
আলুঃ ২ কেজি
চালঃ ৫ কেজি
সেমাইঃ ২ প্যাকেট
যাদের হাতে এই পণ্যগুলো তুলে দেয়া হলো তারা নিতান্তই দরিদ্র, এতোটাই দরিদ্র যে এক বেলার খাবার যোগাড় হলে অন্য বেলার জন্য অপেক্ষা করতে হয় মাঝে মাঝে এক বেলা খেয়েই এক দিন পার করতে হয়। শান্তি লাগছে সঠিক জায়গায় সাহায্যটা পৌঁছে দিতে পেরেছি। (বিঃদ্রঃ ১৫টি পরিবারকে একসাথে দেয়া হয়েছে আর বাকি ৫টি পরিবার আলাদা আলাদা)

বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/450263475399880/

৩। টিসিএম হালিমা মাহুমুদা স্বপ্নকুঞ্জ বৃদ্ধাশ্রমে আমরা:
২৫জন বৃদ্ধ/ বৃদ্ধাকে তুলে দেই ঈদের পোষাক (শাড়ি ও পাঞ্জাবী) ও আয়োজন করি ইফতারের। যা ছিলো আমাদের জন্য অন্য রকম এক ভালো লাগার আয়োজন। বৃদ্ধাশ্রমের প্রধান কর্তাব্যক্তিটি ছিলো বেশ অতিথিপরায়ন ও বন্ধুসুলভ আমরা গ্রুপের পক্ষ থেকে অনেকটা সময় ছিলাম তাঁদের সাথে, জীবনের কিছু ভালো সময় কাটিয়ে এসেছি এই মানুষগুলোর সাথে।

বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/453411378418423/

৪। ১৫জন পথশিশু ও পঙ্গু দরিদ্রকে আমরা প্রদান করি ঈদের জামা:
১৩-০৬-২০১৮ তারিখে আমাদের গ্রুপের এডমিন বাহিনী ও ভলেন্টিয়ার বাহিনী বের হয়েছিলো মাইজদি শহরে একসাথে। তারপর খুঁজে খুঁজে বের করা হলো ১২টি বাচ্চাকে আর ৩জন অসহায় পঙ্গু বৃদ্ধকে। এরপর এক একজনকে হাতে ধরে নিয়ে যাওয়া হয় দোকানে। নিয়ে তাদেরকে বলা হয় যাও পচ্ছন্দ করো নিজের “ঈদের জামা”। আহা!! কি খুশি এক একটা বাচ্চা, বৃদ্ধ। চোখে মুখে আনন্দ, মুখ ভর্তি হাসি। এক একটা বাচ্চা যেনো ঈদের আগেই ঈদের চাঁদ হাতে পেয়ে গেল।৮জন ছেলে পছন্দ করে ঈদের শার্ট আর প্যান্ট। ২জন মেয়ে পছন্দ করে থ্রি পিস আর দুইজন স্কার্ট। ৩জন পঙ্গু অসহায় বৃদ্ধ পছন্দ করেন পাঞ্জাবী।


আয়োজনের একাংশ
বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/456382194788008/

আকবর হোসেন আরমানঃ
নোয়াখালী জেলার কোম্পানীগঞ্জ থানার মুছাপুর ৮ নং ওয়ার্ড এর নুর উদ্দিন মাঝি বাড়ির (চৌধুরী বাজার) মোঃ বাবুল মিয়ার ছেলে চর বড়ধলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেনীতে পড়ুয়া ছাত্র ৮ বছর বয়সের আরমান এর দুইটা কিডনি নষ্টের পথে। বাচ্চাটার পরিবার ভীষণ দরিদ্র। বাবা টুকটাক কাজ করেন মা ও এক দোকানে মাঝে মাঝে কাজ করেন। এভাবেই সংসার চলে তাই এই পরিবারের পক্ষে মোটেই সম্ভব না ঢাকায় এনে চিকিৎসা করানো। আমরা এগিয়ে আসি, সংগ্রহ করি গ্রুপ থেকে কিছু অর্থ  (প্রায় ৩০,০০০/-)আর পৌঁছে দেই বাচ্চাটার পরিবারের হাতে আর তাকে ঢাকায় এনে চিকিৎসার সহায়তা করা হচ্ছে। সে ভর্তি আছে ঢাকা পিজি হাসপাতালে। আমরা তার সার্বক্ষনিক খোঁজ রাখছি।


আকবর হোসেন আরমান
বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/463067487452812/

রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আয়োজনঃ
গত ৩ আগষ্ট ২০১৮ শুক্রবার বিকাল ৫টায় নোয়াখালী জেলা শিল্পকলা অডিটোরিয়ামে আয়োজন করা হয়  রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী জেলার বিভিন্ন সামাজিক সংঘঠনের কর্তাব্যক্তিরা, ফেইসবুক গ্রুপ এর এডমিন, বিশেষ  আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানীত শিক্ষক এবং আমাদের গ্রুপের মেম্বাররা। প্রায় ২০০ এর অধিক অতিথির উপস্থিতিতে  অনুষ্ঠিত হয় রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। এই অনুষ্ঠানে আলোচনা, শুভকামনা, বিভিন্ন সময়ে গ্রুপে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন প্রতিযোগীতার পুরষ্কার বিতরণ, অসুস্থ শিশু আকবর হোসেন আরমান ও  খিজির রহমানআবির এর পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হয় গ্রুপের পক্ষ থেকে অনুদান। সবশেষে ছিলো জমকালো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।


খিজির রহমান আবিরঃ
আবিরের বয়স ৯ মাস সে হার্ট ডিজিজে আক্রান্ত। আবির নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ জেলার  চরপার্বতী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের মোটা চান মিয়া বাড়ির আব্দুর সাত্তারের ছেলে। সে জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটে এ চিকিৎসা নেয়। আমাদের গ্রুপের পক্ষ থেকে বাচ্চাটির পরিবারের হাতে ১০,০০০/- আর্থিক সহায়তা তুলে দেয়া হয়।

নীরব রহমানঃ
নিরব তখন দেশের বাইরে চিকিৎসার জন্য আমরা গিয়েছিলাম আমাদের গ্রুপের পক্ষ থেকে সংগ্রহ করা সামান্য অনুদানটুকু তার বাবা মায়ের হাতে তুলে দেবার জন্য। আমরা গিয়েছিলাম নিরবের আব্বা আম্মার সাথে বেশ অনেকক্ষন কথা বলেছি বিভিন্ন বিষয়ে। সান্তনা দেবার চেষ্টা করেছি। জানি হয়ত সান্তনা কিছুই না। তবুও তাঁদের ছেলের পাশে আমরা আছি এইটুকু বলতে গেছি আর গ্রুপের মাধ্যমে সংগৃহীত ৫০,৬০০ টাকা তুলে দিতে।


বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/541394432953450/

আব্দুল মান্নানঃ
আব্দুল মান্নান, বয়স ১৩ বছর। দরিদ্র বলতে যা বোঝায় সে সীমাও পার করে গেছে মান্নানের পরিবার। ব্যাপারটা এমন তারা যে খাবার খাবে সেই টাকাটা রোজ জোগাড় হয় না। মান্নান প্রায় ১ মাস ধরে টাইফয়েডে আক্রান্ত হয়ে ভীষণ অসুস্থ হয়ে নোয়াখালী সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে। প্রতিদিনের খাবার, ঔষধ, টেস্ট ইত্যাদি করতে গিয়ে ভীষণ খারাপ অবস্থা। আমাদের রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের টিম গিয়েছিলো মান্নানের খোঁজ নিতে। মান্নানের বাবার কান্না ছুঁয়ে গেছে আমাদের হৃদয়। আমরা আমাদের গ্রুপের পক্ষ থেকে আমরা মোট অনুদান পেয়েছি ১১৬৭৫/-
মেডিসিন কিনে দিয়েছি ২০৫০/- ফল কিনে দিয়েছি – ১০৫০/- আর ক্যাশ – ৮৫৭৫/- তুলে দিয়েছি মান্নানের বাবা মায়ের হাতে।  আমরা অক্টোবর ৮, ২০১৮ তারিখে এই অনুদান/ সাহায্য তাদের হাতে তুলে দেই।

বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/543877356038491/

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা ২০১৮ঃ
আমাদের প্রিয় নোয়াখালীতে এবারের ভর্তি যুদ্ধে অংশ নেয় প্রায় ৭০হাজারের বেশি ছাত্র/ ছাত্রী ও অভিবাবক মিলিয়ে প্রায় ১লক্ষ ৫০ হাজার মানুষ। আমরা গ্রুপের পক্ষ থেকে  নোয়াখালী সদরে যেখানে যেখানে আসন পরেছে সেই এলাকাগুলোকে মোট  ৬টি ভাগে ভাগ করে মোট ৩০জন স্বেচ্ছাসেবীকে দায়িত্ব ভাগ করে দেয়া হয়। এই ৬টি পয়েন্টে মূলত আমরা কাজ করেছি, আগত ছাত্র/ ছাত্রী ও তাদের অভিবাবকদের যাতে কোন ধরনের সমস্যা না হয়।  তাদের থাকার জায়গা নিশ্চিত করন, পরীক্ষাকেন্দ্রের সঠিক দিক নির্দেশনা দেয়া, খাবারের ব্যবস্থা ইত্যাদি দেখভাল করা হয়। আমরা মূলত ছাত্র ও ছাত্রী আলাদা ভাবে থাকার ব্যবস্থা করি। আবার অনেকেই ছিলো সনাতন ধর্মের তাদের জন্য স্থানীয় বিভিন্ন মন্দিরে ও আমাদের মেম্বারদের বাসায় থাকার ব্যবস্থা করা হয়। অন্যদের জন্য বিভিন্ন স্কুল, মসজিদ, মাদ্রাসা ও মেম্বারদের বাসায় থাকা ও খাওয়ার ব্যবস্থা করে দেয়া হয়।  তাদের পরীক্ষা কেন্দ্রে যাওয়ার ব্যবস্থা, এবং নোয়াখালী ছেড়ে আসার ব্যবস্থা ইত্যাদির ব্যাপারে সাহায্য করা হয়। আমাদের মোট ৩০ জন স্বেচ্ছাসেবক ২৪ থেকে ২৮ তারিখ অব্দি অক্লান্ত পরিশ্রম করেন বিভিন্ন লোকেশনে। স্টেশন ও বাস স্ট্যান্ড থেকে আগত অতিথিদের স্বাগতম জানিয়ে শুরু হয় তাদের সহায়তা।

বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/552830721809821/?comment_id=552834748476085&notif_id=1540747727585925&notif_t=group_comment

পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রমঃ (পৌরপার্ক ও জেলা প্রশাসকের সামনের রাস্তা)

মন সুন্দর যার সে রাখে দেশ পরিষ্কার। পরিচ্ছন্নতার বার্তা ছড়িয়ে দিতে ১৬ নভেম্বর ২০১৮ সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হলো রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী ফেইসবুক গ্রুপ কর্তৃক আয়োজিত এবং জেলা প্রশাসন, নোয়াখালী ও নোয়াখালী পৌরসভার সহায়তায় “পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী” কার্যক্রম। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে তদারকি করেন জনাব তন্ময় দাস, জেলা প্রশাসক, নোয়াখালী এবং আরো উপস্থিত ছিলেন নোয়খালী পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কমিশনার ও প্যানেল মেয়র জনাব রতন কৃষ্ণ পাল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, এ.ডি.সি শিক্ষা, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, সকল নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেটগণ, প্রকৌশলী নোয়াখালী পৌরসভা সহ আরো অনেকে।

সূচনালগ্ন থেকে এই গ্রুপটি বিশেষ করে নোয়াখালী জেলার পরিচ্ছন্নতা নিয়ে গুরত্বসহকারে কাজ করে যাচ্ছে, তারই ধারাবাহিকতায় আজ আয়োজিত হলো এই “পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী” কার্যক্রম। আজকের এই আয়োজনে আরো যারা অংশ গ্রহন করেছিলো, নোয়াখালী পৌরসভা, পরিবেশ অধিদপ্তর, রেড ক্রিসেন্ট নোয়াখালী, স্কাউট নোয়াখালী ও গ্রুপের বিভিন্ন সদস্য ও সাধারণ পথচারী। আজ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের রাস্তা ও পৌর পার্কে এই পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে সকলে অংশগ্রহণ করেন। উক্ত অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মহোদয় গ্রুপের এই কার্যক্রমের সাথে ভবিষ্যতে যুক্ত থাকা ও সহায়তার আশ্বাস প্রদান করেন। তিনি সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন এভাবে সবাই স্বেচ্ছাশ্রমে এগিয়ে এলে একদিন নোয়াখালী গ্রীন সিটিতে রূপ নিবে। এবং এই গ্রুপকে সাথে নিয়ে আরো পরিচ্ছন্নতার অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন বলে জানান। অনুষ্ঠানে গ্রুপের পক্ষে থেকে জানানো হয় ভবিষ্যতে তাদের নোয়াখালী ভিত্তিক এই পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম আরো বেগবান হবে।

সময় নিউজে আমাদের রিপোর্টঃ http://www.somoynews.tv/pages/details/136031?fbclid=IwAR1HVJs9zits5beMXTYUZyzGhFlWl_zW6KD921ap8wAPckJb4pSFD51wJw8

উত্তরণ বার্তায় আমাদের রিপোর্টঃ http://www.uttaranbarta.com/news_details.ph_prdn

অনুষ্ঠানের একটি লাইভঃ https://www.facebook.com/subrata.paul.393/videos/2214630408561023/

পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রমঃ (সুপার মার্কেটের সামনে)
পরিচ্ছন্নতার বার্তা ছড়িয়ে দিতে ৩০ নভেম্বর ২০১৮ সকাল ৮ টায় অনুষ্ঠিত হলো রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী ফেইসবুক গ্রুপ কর্তৃক আয়োজিত এবং জেলা প্রশাসন, নোয়াখালী ও নোয়াখালী পৌরসভার সহায়তায় “পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী” কার্যক্রমের ৩য় অনুষ্ঠান। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে তদারকি করেন জনাব তন্ময় দাস, জেলা প্রশাসক, নোয়াখালী এবং আরো উপস্থিত ছিলেন নোয়খালী পৌরসভা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, সকল নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেটগণসহ আরো অনেকে। এই দিনে আমরা নোয়াখালী সুপার মার্কেটের আশেপাশে ও সামনের অংশে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম পরিচালনা করি।

বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/groups/rdnoakhali/permalink/568844240208469/

শহিদ ভুলু স্টেডিয়ামে পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রমঃ
১৪-১২-২০১৮ থেকে ১৬-১২-২০১৮ তারিখ পর্যন্ত মহান মুক্তিযুদ্ধের বিজয় দিবস ২০১৮ উপলক্ষে রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপ কর্তৃক আয়োজিত ধারাবাহিক পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রমের একটি বিশেষ আয়োজন পরিচালিত হয় শহিদ ভুলু স্টেডিয়ামে। জেলা প্রসাশক মহোদয়ের অনুমতিক্রমে সকলের মাঝে “মন সুন্দর যার সে রাখে দেশ পরিস্কার” এই বার্তা ছড়িয়ে দিতে ১৪-১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ পুরো স্টেডিয়ামের মাঠ, গ্যালারি ও সামনের অংশ সম্পুর্ণ পরিচ্ছন্ন করা হয়। গ্রুপের প্রায় ৫০জন স্বেচ্ছাসেবী তিন দিনের এই কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে।
তিন দিনের লাইভ দেখতে এখানে যানঃ
https://www.facebook.com/rdnoakhali/videos/341242183364978/
https://www.facebook.com/rdnoakhali/videos/2727452277480334/
https://www.facebook.com/rdnoakhali/videos/219101255668131/
https://www.facebook.com/rdnoakhali/videos/737028850005567/

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বিশেষ সম্মাননাঃ
১৬-১২-২০১৮ তারিখে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে RDN আয়োজিত পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রমের দ্বারা আমরা অর্জন করি এক বিশেষ সম্মাননা। ৩ দিনব্যাপী পরিচালিত এ আয়োজনে আমাদের অবদানে খুশি হয়ে মাননীয় জেলা প্রশাসক মহোদয় জনাব তন্ময় দাশ স্যার সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন আমাদের টিমের হাতে। এটি ছিলো আমাদের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আজ অবধি কোন বিশেষ সম্মান।

মাননীয় জেলা প্রশাসক মহোদয় জনাব তন্ময় দাশ স্যার সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন আমাদের টিমের হাতে।

মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলায় আমাদের স্টলঃ
১৪-১২-২০১৮ থেকে ২০-১২-২০১৮ তারিখ পর্যন্ত আমরা মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা ২০১৮ তে ছিলাম আমাদের গ্রুপের স্টল নিয়ে। আমরা ছিলাম মূলত RDN কি করে, কি করতে চায়, এবং কি করেছে ইত্যাদি প্রদর্শনী ও ব্যাপক প্রচারের জন্য আমরা ছিলাম মেলায় ৭ দিন ব্যাপী ৭৫ নম্বর স্টলে। এটি ছিলো বিজয় মেলায় সোশ্যাল মিডিয়া ভিত্তিক কোন গ্রুপের প্রথম উপস্থিতি।
একটি লাইভ দেখুন এখানেঃ
https://www.facebook.com/rdnoakhali/videos/2212423805751266/
৭৫ নং স্টলে আমরা

মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলায় পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রমঃ
১৯-১২-২০১৮ তারিখে গ্রুপের সকল ভলেন্টিয়ার ও আগ্রহী দর্শনার্থী সবাই একসাথে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলাটাকে আরো পরিচ্ছন্ন সুন্দর করে তুলতে পুরো মেলা, শহিদ মিনার, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ব, মেলার মঞ্চ, কচিকাঁচার মেলা, আঙ্গিনা ও প্রধান সড়ক থেকে প্রতিটি স্টলের আশা পাশে পরিচ্ছন্ন করা হয় ও বিভিন্ন স্থানে ময়লা ফেলার জন্য টেম্পোরারি ময়লার ঝুড়ি সরবরাহ করা হয়। এটি মূলত আমাদের পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রমের একটি উদ্যোগ ছিলো।
একটি লাইভ দেখুন এখানেঃ
https://www.facebook.com/100007593467605/videos/2150697038526724/

প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরণঃ
২০-১২-২০১৮ তারিখে পূর্ব নির্ধারিত ঘোষনা অনুযায়ী প্রদান করা হলো বিজয় মেলা উপলক্ষ্যে আয়োজিত ২টি প্রতিযোগীতার পুরস্কার। চারজন বিজয়ীর মাঝে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলায় আমাদের গ্রুপের স্টল থেকে পুরস্কার বিতরণ করা হয়, এসময় আমাদের গ্রুপের এডমিন ও লাইট টিমের বিভিন্ন মেম্বাররা উপস্থিত ছিলেন। অত্যন্ত আনন্দঘন আমেজে পুরুস্কার বিতরণ করা হয়।


শহিদ মিনার, মুক্তিযুদ্ধ স্তম্ব ও বিজয় মঞ্চে পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রমঃ

মহাধুমধামে শেষ হয়েছিলো নোয়াখালীতে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা কিন্তু তারপর? কিন্তু কাজের কাজটা সবাই না করে ফেলে চলে গেছেন। আর তাহলো ১৫-২০ দিনের ইচ্ছেমত এদিক ওদিক ছড়ানো ময়লা। মাঝে ১৯ ডিসেম্বর আমরা নিজেরাই উদ্যোগ নিয়ে পুরো মেলা পরিচ্ছন্ন করেছিলাম এবং মেলায় ডাস্টবিন দিয়েছিলাম অনেকগুলো।

আজ ০৪-০১-২০১৯ ছিলো শহিদ মিনার, মুক্তিযুদ্ধ স্তম্ব, বিজয় মেলা মঞ্চ ও এর আশে পাশে। আমাদের একার পক্ষে কখনই সম্ভব না এই বিশাল শহর পরিচ্ছন্ন রাখা। আমরা শুধু পথ দেখাতে পারি, সচেতন করতে পারি এর বেশি কিছু না। আমরা হতাশ হই না আমরা করেই যাবো দেখি যদি পরিবর্তন হয় মানুষের স্বভাবের।


শীতবস্ত্র বিতরণ ২০১৯ঃ
রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের শীতবস্ত্র বিতরণ ২০১৯ এর আয়োজনে আমরা নিম্নোক্ত স্থানে দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিতদের মাঝে কম্বল ও শীতবস্ত্র বিতরণ করিঃ
১। সওদাগর বাজার, সুবর্নচর,
২। কলার হাট, সুবর্নচর,
৩। কাঞ্চন বাজার, সুবর্নচর,
৪। পরিস্কার বাজার, সুবর্নচর,
৫। সৈকত ডিগ্রি কলেজ, সুবর্নচর,
৬। চর নংগলীয়া, (হাজীপুর), সুবর্নচর,
৭। আক্তার মিয়ার হাট, সুবর্নচর,
৮। বয়ার বাজার, (ভাটিরটেক, ধর্মপুর,) সদর,
৯। সোনাপুর রেল স্টেশন, সদর,
১০। পূর্ব লক্ষ্মীনারায়ণপুর, সদর,
১১। পশ্চিম রাজারামপুর, সদর,
১২। হরিনারায়ন পুর, সদর,
১৩। রাজগঞ্জ, সদর,
১৪। জয়কৃষ্ণপুর, বেগমগঞ্জ,
১৫। মোহাব্বতপুর, বেগমগঞ্জ,
১৬। চৌমুহনী রেল স্টেশন, বেগমগঞ্জ,
১৭। পাইকপাড়া, সাধুরখিল, খিলপাড়া, চাটখিল,
১৮। আশ্রাফপুর,বাটইয়া, কোম্পানীগঞ্জ।
আমরা ২টি দলে ভাগ হয়ে মূলত ১৯ – ২১ জানুয়ারী ২০১৯ তারিখে মোট ১৮টি স্থানে প্রায় ৩৫০টি কম্বল ও শীতবস্ত্র বিতরণের কাজ করি। তার মাঝে একদল সদর ও বেগমগঞ্জ এবং অন্যদল সুবর্নচর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিতরণে অংশ নেয়৷ অত্যন্ত সুন্দর, সুশৃঙ্খলভাবে এই আয়োজন সম্পন্ন হয়। আমরা মূলত গ্রুপের মেম্বারদের থেকে প্রাপ্ত অনুদানের মাধ্যমে এই আয়োজন সম্পন্ন হয়।
#শীতবস্ত্র_বিতরণ_২০১৯

রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের বাৎসরিক শীতবস্ত্র বিতরণ

http://www.deshrupantor.com/mofossol/2019/01/19/117913?fbclid=IwGbHi8bXd2f26Vj8NqmcnHFztp53C1pSdpVjsf9ANBCtpYHTVRAAVEnfrjLw

পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন – লক্ষ্মীনারায়ণপুর পৌর আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ঃ

আমাদের রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের “পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রম” এর একটি অংশ “পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম”। এটি আমাদের ২য় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এই আয়োজন। আমরা গ্রুপের সবাই একসাথে “লক্ষ্মীনারায়ণপুর পৌর আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে” মিলিত হয়েছি, সাথে ছিলো প্রায় ৭০০ এর মতো ছাত্র/ ছাত্রী, শিক্ষক, অভিবাবক, আমাদের লাইট ও ভলেন্টিয়াররা।

🌼 আমরা শিখিয়েছি কি করে পরিচ্ছন্ন থাকতে হয়,
🌼 জানিয়েছি কি করে সচেতন ভাবে বাঁচতে হয়,
🌼 হাতে কলমে শিখিয়েছি কি করে বিদ্যালয়ের মাঠ ও শ্রেণীকক্ষ পরিচ্ছন্ন রাখতে হয়,
🌼 শিখিয়েছি কি করে সঠিক নিয়মে হাত ধুতে হয়।

“পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম” – যার মাধ্যমে আমরা ছড়িয়ে দিতে চাই পরিচ্ছন্নতার বার্তা একেবারে কোমলমতি শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে তরুন যুবকটির কাছে। শিশুরা দেশের ভবিষ্যৎ আর এদেরকে যদি সঠিক শিক্ষা দেয়া যায় তারা সেই শিক্ষা ছড়িয়ে দিবে তাদের পরিবারে, বন্ধুদের মাঝে সর্বোপরী দেশের কল্যাণে। আমাদের মূল লক্ষ হলো একটি শিক্ষাঙ্গন পরিচ্ছন্ন হওয়া মানে এর সাথে সাথে যত শিক্ষার্থী আছে সকলের পরিবার ও তাদের নিজদের মানসিকতার পরিবর্তন করে সমগ্র নোয়াখালী জেলায় এই পরিচ্ছন্নতার বার্তা পৌঁছে দেয়া।
🌷
এবারের স্কুল ছিলোঃ
🌼 লক্ষ্মীনারায়ণপুর পৌর আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
🌼 তারিখঃ ৩১ জানুয়ারী ২০১৯ (বৃহস্পতিবার)

পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন – ফতেহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ঃ

আমাদের রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের “পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রম” এর একটি অংশ “পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম”। এটি আমাদের ৩য় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এই আয়োজন। আমরা গ্রুপের সবাই একসাথে “ফতেহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে” মিলিত হয়েছি, সাথে ছিলো প্রায় ৩৫০ এর মতো ছাত্র/ ছাত্রী, শিক্ষক, অভিবাবক, আমাদের লাইট ও ভলেন্টিয়াররা।

🌼 আমরা শিখিয়েছি কি করে পরিচ্ছন্ন থাকতে হয়,
🌼 জানিয়েছি কি করে সচেতন ভাবে বাঁচতে হয়,
🌼 হাতে কলমে শিখিয়েছি কি করে বিদ্যালয়ের মাঠ ও শ্রেণীকক্ষ পরিচ্ছন্ন রাখতে হয়,
🌼 শিখিয়েছি কি করে সঠিক নিয়মে জীবনে চলতে হয়,
🌼 কনক দেখিয়েছে তার পায়ের জাদু, তার দক্ষতা যা বাচ্চাদের অনুপ্রাণিত করেছে বেশ।

“পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম” – যার মাধ্যমে আমরা ছড়িয়ে দিতে চাই পরিচ্ছন্নতার বার্তা একেবারে কোমলমতি শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে তরুন যুবকটির কাছে। শিশুরা দেশের ভবিষ্যৎ আর এদেরকে যদি সঠিক শিক্ষা দেয়া যায় তারা সেই শিক্ষা ছড়িয়ে দিবে তাদের পরিবারে, বন্ধুদের মাঝে সর্বোপরী দেশের কল্যাণে। আমাদের মূল লক্ষ হলো একটি শিক্ষাঙ্গন পরিচ্ছন্ন হওয়া মানে এর সাথে সাথে যত শিক্ষার্থী আছে সকলের পরিবার ও তাদের নিজদের মানসিকতার পরিবর্তন করে সমগ্র নোয়াখালী জেলায় এই পরিচ্ছন্নতার বার্তা পৌঁছে দেয়া।
🌷
এবারের স্কুল ছিলোঃ
🌼 ফতেহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
🌼 তারিখঃ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ (শনিবার)

গিনিস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড বিজয়ী নোয়াখালী চৌমুহনীর ছেলে কনক কর্মকারকে আমাদের রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের পক্ষ থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ফতেহপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সংবর্ধনা দেয়া হয়। আমরাই প্রথম কোন সংগঠন এবং এমনকি ব্যক্তিগত পর্যায়েও প্রথম কেউ যারা তাকে সংবর্ধনা দিলো। কনক তার কপালের উপর ৬০০ ওয়ান টাইম গ্লাস একের উপর এক রেখে প্রায় ১মিনিট ৬সেকেন্ড ভারসাম্য রক্ষা করে রাখে। সে ইতালির এক প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে এই সম্মান অর্জন করে। সে নোয়াখালী জেলার ইতিহাসে প্রথম একজন যে কিনা বিশ্বরেকর্ড করেছে।

শহিদ মিনার পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রম – ০৮-০৩-২০১৯ঃ
২১শে ফেব্রুয়ারী পরবর্তি সময়ে শহিদ মিনার থেকে সরানো হয়নি ফুল, ককশিট, পাতা ও বিভিন্ন আবর্জনা। কি লাভ এই সম্মানের?? সঠিক সম্মান দেখাতে না পারলে ঐ দিবস কেন্দ্রিক ভালোবাসা, শ্রদ্ধার আদিখ্যেতা দেখিয়ে নিজের অস্তিত্বের চরম সমাপ্তি ঘোষণা করার কি দরকার??? ঐ একদিন যে সম্মান দেখানো হয় তা বাকি ৩৬৪ দিন আর হয় না। ধরতে গেলে বাকি দিনগুলোতে চরম অবহেলায় পড়ে থাকে ভাষা শহিদের স্মৃতি চিহ্ন “শহিদ মিনার”। শিক্ষিত মানুষগুলো প্রতি নিয়ত জুতো পড়ে উঠে যায় ছবি তুলতে, বাদাম খেয়ে খোসা ছড়িয়ে দিয়ে যায় আর সেই ছবি ফেইসবুকে শেয়ার দিয়ে আহা দেশ প্রেম, আহা সম্মান বলে মিথ্যা বুলি/ স্ট্যাটাস দেখায় ভার্চুয়াল জগতে বিবেকহীন বাঙ্গালীরা।

আমরা শুধু দেখে থাকি না আমাদের বিবেকে বাঁধে তাই কাল গ্রুপে একজন পোস্ট করলো শহিদ মিনারের করুন দশা, অপরিচ্ছন্ন হয়ে আছে। আমরা কালই সিদ্ধান্ত নিয়ে আজ সকাল ৯টায় শহিদ মিনার প্রাঙ্গণে আমরা মাত্র ৭-৮ জন ভলেন্টিয়ার মিলে আমাদের পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রমের ধারাবাহিক প্রক্রিয়ায় পরিচ্ছন্ন করেছি পুরো শহিদ মিনার। আমরা শুধু এইটুকু করি কিন্তু বাকিরা আমাদের সমান এইটুকু করলেও অনেক অনেক আগে নোয়াখালী একটা সুন্দর পরিচ্ছন্ন জেলা হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হতো। আমাদের হাতে কিছুই ছিলো না ছেলেরা এর ওর কাছ থেকে চেয়ে দুইটা ঝাড়ু জোগাড় করলে বেলচা নাই তাই এদিক ওদিক খুঁজে দুইটা বাতিল পেস্টুন খুলে নিয়ে বেলচার কাজ করলো। সেগুলো সরানোর জন্য গাড়ি/ ভ্যান ছিলো না ছেলে মেয়েগুলো সেই পেস্টুনকে ভ্যানের মতো করে ময়লা নিয়ে একটা নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলেছে।

 

এতিমখানায় এক বেলা খাবারের আয়োজনঃ
১০ মার্চ, ২০১৯ আমাদের পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম ছিলো রহমানিয়া মাদ্রাসা, গোপীনাথপুর, শিবপুরে। তার পাশেই ছিলো আজিজিয়া মুসলিম এতিমখানা। আমাদের গ্রুপের এক শ্রদ্ধেয় বড় আপু তাঁর মায়ের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আমাদের হাতে তুলে দিয়েছিলেন কিছু অর্থ। খুঁজে বের করতে বলেছেন সব থেকে গরীব যারা, সব থেকে দরকার যাদের এমন কিছু বাচ্চাদের যাতে তিনি সেই অর্থ বাচ্চাদের এক বেলা খাবারে ব্যায় করতে পারেন। আমরাও সেই কাজটা লুফে নিলাম। আর রহমানিয়া মাদ্রাসায় পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম শেষে আয়োজন করলাম আজিজিয়া মুসলিম এতিমখানায় বাচ্চাদের জন্য এক বেলার খাবার। বাচ্চারা বেশ তৃপ্তি নিয়ে খেলো আমাদের ভলিন্টিয়াররা সাথে থেকে তদারকি করে বাচ্চাদের খাইয়ে তবেই সব দায়িত্ব শেষ করে বাসায় এসেছে। মোট বাচ্চা ছিলো ৪৫জন। ধন্যবাদ প্রিয় শ্রদ্ধেয় আপাকে আমাদের হাতে এই গুরু দায়িত্ব তুলে দেবার জন্য। ধন্যবাদ বাচ্চাদের তৃপ্তির হাসিটুকু উপভোগ করার ব্যবস্থা করে দেয়ার জন্য।

পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম – রহমানিয়া মাদ্রাসা – ১০-০৩-২০১৯ঃ
আমাদের রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের “পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রম” এর একটি অংশ “পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম”। এটি আমাদের ৪র্থ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এই আয়োজন।

🌼 আমরা শপথ করিয়েছি পরিচ্ছন্ন থাকার
🌼 আমরা আজ শিখিয়েছি কি করে পরিচ্ছন্ন থাকতে হয়,
🌼 জানিয়েছি কি করে সচেতন ভাবে বাঁচতে হয়,
🌼 হাতে কলমে প্রতিযোগিতামূলক পরিস্থিতির মাধ্যমে শিখিয়েছি কি করে বিদ্যালয়ের মাঠ ও শ্রেণীকক্ষ পরিচ্ছন্ন রাখতে হয়,
🌼 শিখিয়েছি কি করে সঠিক নিয়মে হাত ধুতে হয়।
🌼 হাতে তুলে দিয়েছি সামান্য উপহার, শিক্ষা উপরকরণ একটি করে কলম।

“পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম” – যার মাধ্যমে আমরা ছড়িয়ে দিতে চাই পরিচ্ছন্নতার বার্তা একেবারে কোমলমতি শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে তরুন যুবকটির কাছে। শিশুরা দেশের ভবিষ্যৎ আর এদেরকে যদি সঠিক শিক্ষা দেয়া যায় তারা সেই শিক্ষা ছড়িয়ে দিবে তাদের পরিবারে, বন্ধুদের মাঝে সর্বোপরী দেশের কল্যাণে। আমাদের মূল লক্ষ হলো একটি শিক্ষাঙ্গন পরিচ্ছন্ন হওয়া মানে এর সাথে সাথে যত শিক্ষার্থী আছে সকলের পরিবার ও তাদের নিজদের মানসিকতার পরিবর্তন করে সমগ্র নোয়াখালী জেলায় এই পরিচ্ছন্নতার বার্তা পৌঁছে দেয়া।
🌷
এই পর্যায়ের মাদ্রাসাঃ
🌼 রহমানিয়া মাদ্রাসা, গোপীনাথপুর, শিবপুর।
🌼 তারিখঃ ১০ মার্চ ২০১৯ (রবিবার)

পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম – নুরজাহান মেমোরিয়াল সঃ প্রাঃ বিদ্যালয় – ৩০-০৩-২০১৯ঃ

আমাদের রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের “পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রম” এর একটি অংশ “পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম”। এবারে আয়োজন ছিলো সোনাপুরের নুরজাহান মেমোরিয়াল সঃ প্রাঃ স্কুলে এটি ছিলো ৫ম শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আমাদের এই পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম। আমাদের ভলেন্টিয়ারসহ সকলের সহায়তা ও অংশগ্রহণে খুব সুন্দর ভাবে এই অনুষ্ঠান আজ সম্পন্ন হয়।

🌼 আমরা শপথ করিয়েছি পরিচ্ছন্ন থাকার,
🌼 আমরা শিখিয়েছে কি করে পরিচ্ছন্ন থাকতে হয়,
🌼 জানিয়েছি কি করে সচেতন ভাবে বাঁচতে হয়,
🌼 হাতে কলমে প্রতিযোগিতামূলক পরিস্থিতির মাধ্যমে শিখিয়েছি কি করে বিদ্যালয়ের মাঠ ও শ্রেণীকক্ষ পরিচ্ছন্ন রাখতে হয়,
🌼 দেখালাম কি করে সঠিক নিয়মে হাত ধুতে হয়,
🌼 আর সব শেষে সকলের হাতে তুলে দেয়া হলো সামান্য উপহার- শিক্ষা উপরকরণ।

“পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম” – যার মাধ্যমে আমরা ছড়িয়ে দিতে চাই পরিচ্ছন্নতার বার্তা একেবারে কোমলমতি শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে তরুন যুবকটির কাছে। শিশুরা দেশের ভবিষ্যৎ আর এদেরকে যদি সঠিক শিক্ষা দেয়া যায় তারা সেই শিক্ষা ছড়িয়ে দিবে তাদের পরিবারে, বন্ধুদের মাঝে সর্বোপরী দেশের কল্যাণে। আমাদের মূল লক্ষ হলো একটি শিক্ষাঙ্গন পরিচ্ছন্ন হওয়া মানে এর সাথে সাথে যত শিক্ষার্থী আছে সকলের পরিবার ও তাদের নিজদের মানসিকতার পরিবর্তন করে সমগ্র নোয়াখালী জেলায় এই পরিচ্ছন্নতার বার্তা পৌঁছে দেয়া।

এই পর্যায়ের স্কুল ছিলোঃ
🌼 নুরজাহান মেমোরিয়াল সঃ প্রাঃ বিদ্যালয়, সোনাপুর, নোয়াখালী।
🌼 তারিখঃ ৩০ মার্চ ২০১৯ (শনিবার)

ফেইসবুকে নোয়াখালী” – সবাই মিলেই নোয়াখালীঃ (১৪-০৪-২০১৯)

নোয়াখালীভিত্তিক সবথেকে বড় গ্রুপ রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের পরিকল্পনা ও আয়োজনে এই প্রথমবারের মতো বৈশাখের প্রথম দিনে নোয়াখালীতে আয়োজিত হয়ে গেলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের জেলাভিত্তিক গ্রুপগুলোর মিলনমেলা।

এতে অংশ নেয় নোয়াখালী জেলার ৭টি গ্রুপ। জেলা প্রশাসক মহোদয় জনাব তন্ময় দাস এই অনুষ্ঠানের শুভ উদ্ভোধন ঘোষনা করেন। আজকের এই আয়োজনের নাম ছিলো- “ফেইসবুকে নোয়াখালী” যার মূল থিম ছিলো- “সবাই মিলেই নোয়াখালী।”

এই দিনে আমরা ভার্চুয়াল জগতের বাইরে নিয়ে আসি আমাদের গ্রুপগুলোকে সকলের জন্য। বিভিন্ন সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন (সেইফ ইন্টারনেট, নিরাপদ সড়ক, নিরাপদ খাদ্য ও নারী নির্যাতন বিরোধী), আড্ডা, বিভিন্ন ফান গেইম, প্রতিযোগিতা, প্রদর্শনী, ইত্যাদি আয়োজন ছিলো দিন ব্যাপী। বিপুল সংখ্যক মানুষের সমাগম হয় আজকের এই আয়োজনে এবং এতে করে সকলের মাঝে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ইতিবাচক দিকগুলো উঠে আসে।

স্থানঃ মাইজদি পৌর পার্ক, ডিসি অফিসের সামনে।
তারিখঃ পহেলা বৈশাখ, ১৪২৬, ১৪ এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টা

অংশগ্রহণকারী গ্রুপঃ
* আর ডি এন,
* আমরা নোয়াখাইল্লা পরিবার,
* ফেরারী নেটওয়ার্ক,
* নোয়াখাইল্লা ফুডিজ,
* নোয়াখালী ফুড লাভার,
* ব্লাড হান্টার নোয়াখালী,
* এম আর ব্লাড ডোনার’স ফোরাম।
* নোয়াখালী টিভি

রমজান ২০১৯ঃ
২৫টি পরিবারের ইফতার সামগ্রী, ৫টি এতিমখানায় ইফতার ও রাতের খাবার আয়োজন, ১টি বৃদ্ধাশ্রমে ইফতার আয়োজন ও ঈদ পোশাক বিতরণ এবং ৩৫জন পথ শিশু মহিলা পুরুষদের ঈদ পোশাক বিতরণ।

🌺 মদিনাতুল উলুম আল-ইসলামীয়া মাদ্রাসা, টাইগারপাস, চট্টগ্রাম
🌺 তারিখঃ ১৭-০৫-২০১৯ শনিবার
🌺 সংখ্যাঃ ৪৫জন

🌺 এতিমখানাঃ আল জামেয়াতুল ইসলামীয়া আহলিয়া আমানতপুর মাদ্রাসা ও এতিমখানা, আমানতপুর, বেগমগঞ্জ, নোয়াখালী।
🌺 তারিখঃ ২৫-০৫-২০১৯ শনিবার
🌺 সংখ্যাঃ ৪০জন

🌺 হযরত আবু বকর (রাঃ) নুরানী মাদ্রাসা,হেফজ খানা ও এতিমখানা, আক্তার মিয়ার হাট,মোহাম্মদপুর, সুবর্নচর।
🌺 তারিখঃ ২১-০৫-২০১৯ শনিবার
🌺 সংখ্যাঃ ৪৫জন

🌺 মার্কাজুল উলুম কওমি মাদ্রাসা, মতিপুর, সোনাপুর।
🌺 তারিখঃ ২১-০৫-২০১৯ শনিবার
🌺 সংখ্যাঃ ৩৫জন

🌺 এতিমখানাঃ জাহানাবাদ দারুল উলুম আহমদীয়া কাওমী মাদ্রাসা, দানামিয়া বাজার, নোয়াখালী।
🌺 তারিখঃ ২৭-০৫-২০১৯ সোমবার
🌺 সংখ্যাঃ ৪৫জন

🌺 ১টি বৃদ্ধাশ্রমে ইফতার ও পোশাক বিতরণ।
🌺 তারিখঃ ০২-০৬-২০১৯ রবিবার
🌺 সংখ্যাঃ ২৫জন

🌺 পথশিশুদের জন্য ঈদের নতুন জামা বিতরণ।
🌺 তারিখঃ রাত ৯টা, ০৪-০৬-১৯ মঙ্গলবার
🌺 সংখ্যাঃ ৩৫জন



রমজান ২০১৯ এ ২৫ দরিদ্র পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণঃ

আলহামদুলিল্লাহ মেম্বারদের সহযোগিতায় ও রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের আয়োজনে ১৭-০৫-২০১৯, শুক্রবার তারিখে ২৫টি অসহায় দরিদ্র পরিবারকে ইফতার সামগ্রী সহায়তা প্রদান করা হলো।
আজ সকাল ১০টায় আমরা নোয়াখালীর বিভিন্ন এলাকার মোট ২৫টি অসহায় দরিদ্র পরিবারের হাতে তুলে দেই ১৫টি রোজার সমপরিমান বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি:
ছোলা ২ কেজি
পেয়াজ ২ কেজি
২০০গ্রাম মরিচ গুড়া ১ প্যাকেট 
২০০ গ্রাম হলুদ গুড়া ১ প্যাকেট
লবন ১কেজি ১ প্যাকেট
মুড়ি ১কেজি ১ প্যাকেট
সয়াবিন ১লিটার ১ বোতল
খেজুর ৫০০গ্রাম ১ প্যাকেট
চিনি ১কেজি ১ প্যাকেট
আলু ২ কেজি
গুড়া দুধ ২৫০গ্রাম ১ প্যাকেট
সেমাই ৫০০গ্রাম ১ প্যাকেট

যাদের হাতে এই পণ্যগুলো তুলে দেয়া হলো তারা নিতান্তই দরিদ্র, এতোটাই দরিদ্র যে এক বেলার খাবার যোগাড় হলে অন্য বেলার জন্য অপেক্ষা করতে হয় মাঝে মাঝে এক বেলা খেয়েই এক দিন পার করতে হয়। শান্তি লাগছে সঠিক জায়গায় সাহায্যটা পৌঁছে দিতে পেরেছি। (বিঃদ্রঃ ২৫টি পরিবারের অনেককেই আমরা বাড়ি গিয়ে পৌঁছে দিয়ে আসি দ্রব্যাদি। কেউ কেউ ছবি তুলতে চান নি তাই জোর করিনি।)

রমজান ২০১৯ এ আর ডি এন এর চট্টগ্রাম টিমের আয়োজনে এতিমদের জন্য আয়োজিত ইফতারঃ
রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী গ্রুপের চট্টগ্রাম টিমের উদ্যোগে মদিনাতুল উলুম আল-ইসলামীয়া মাদ্রাসা, টাইগারপাস, চট্টগ্রামে এতিমখানায় ১৭-০৫-২০১৯, শুক্রবার আয়োজিত হলো ইফতার এর। এটি আরডিএন চট্টগ্রাম টিমের প্রথম উদ্যোগ। সফল ভাবে আয়োজিত হলো। বিশেষ ধন্যবাদ জানাই অবনী অনার্য ভাই, রবিন, আনোয়ার ভাই, তাসলিমা আপা, রাজু ভাই, রিয়াজ ভাই, আকাশ ভাই, আজগর ভাই ও এডমিন শুভ কে। এই রোজায় আমাদের এটি প্রথম ইফতার আয়োজন। এই দিনে মোট ৪০জন এতিমকে ইফতার করানো হয় টিমের পক্ষ থেকে।

 

রোজার ঈদ ২০১৯, পথশিশুদের ঈদ পোশাক বিতরণঃ
ঈদ হবে কি হবে না তা নিয়ে চলছিলো দ্বিধা দ্বন্দ, কিন্তু আমাদের একঝাঁক ভলেন্টিয়াররা তখন এদিক ওদিক খুঁজে বের করছিলো এক এক করে পথশিশু, দরিদ্র মহিলা ও পুরুষ যাদের ঐ চাঁদ কপাল হয়নি চাঁদরাতে ঈদের পোষাক হাতে করে বাড়ি ফেরার। এমন মানুষই খুঁজে খুঁজে বের করা হলো প্রায় ৩৫ জনের মতো। ২ বছরের বাচ্চা থেকে ৭০ বছরের বয়স্ক সবাই ছিলো এই তালিকায়। এবার চিন্তা হলো এদের কি দেয়া যায়? ইতিমধ্যে চৌমুহনী থেকে “সেভেন ব্র্যান্ডের কর্ণধার” কিছু ছেলেদের ও মেয়েদের জামা পাঠিয়ে দিলেন। আবার আমাদের এক এডমিন তার মামার দোকান থেকে কিছু জামা নিয়ে এলেন। তাতে করে প্রায় ১২টি মেয়ে ও ৭টি ছেলের পোশাকের ব্যবস্থা হয়ে গেলো। এবার বাকি রইলো আরো ৭টা ছেলে ১১জন মহিলা ও ১জন পুরুষ। এদের সবাইকে নিয়ে একটা দোকান থেকে কিনে দেয়া হলো তাদের পছন্দ মতো জামা, শাড়ি ও পাঞ্জাবি। এভাবে ঈদের খুশি বিলিয়ে আরডিএন বাহিনীর বাসায় ফিরতে ফিরতে রাত তখন ১২টা। এদিকে আকাশে ঈদের সেই প্রিয় চাঁদ আর সাথে বাজছে “ও মোন রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ”
এটাই ঈদ, এটাই উৎসব, এটাই বাংলাদেশ তদুপরি নোয়াখালী সকলের মুখে হাসি ফুটিয়ে তবেই ঈদ পালন করে সবাই।।
বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানাইঃ SEVEN The Brand Shop, Morshed Alam Complex, Chowmuhoni, Noakhali

৬ষ্ঠ পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম টিসিএম শিশু নীড় ১ ও ২ – ২০-০৬-২০১৯
প্রায় দেড় বছর ধরে আরডিএন কাজ করছে একটি সুন্দর পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী জেলা তৈরি করার জন্য। আমাদের উদ্যোগ খুব ছোট আকারে কিন্তু কথায় আছে না ছোট ছোট বালু কনা বিন্দু বিন্দু জল আর সেই বিশ্বাস থেকেই আমরা লড়ে যাচ্ছি আজও। একদিন সফল হবোই। সেই ধারাবাহিকতায় আজ ছিলো আমাদের ৬ষ্ঠ আয়োজন। আমরা দুই ভাবে কাজ করি ১। পাবলিক স্থানগুলোতে পরিচ্ছন্নতা সচেতনতা কার্যক্রম ও ২। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পরিচ্ছন্নতা সচেতনতা কার্যক্রম। দুটি মিলিয়েই আমাদের পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রমপরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রমে জ আমরা উপস্থিত ছিলাম টিসিএম শিশু নীড় ১ ও ২ দুটি স্কুলে একটি জাহানাবাদ অন্যটি নিত্যানন্দপুর, সদর, নোয়াখালীতে। একই সাথে কোমলমতি শিশু কিশোরদের মাঝে পরিচ্ছন্নতার বার্তা পৌঁছে দিতে আজ ছিলো এই আয়োজন।
🌼 আমরা শপথ করিয়েছি পরিচ্ছন্ন থাকার,
🌼 আমরা শিখিয়েছি কি করে পরিচ্ছন্ন থাকতে হয়,
🌼 জানিয়েছি কি করে সচেতন ভাবে বাঁচতে হয়,
🌼 হাতে কলমে প্রতিযোগিতামূলক পরিস্থিতির মাধ্যমে শিখিয়েছি কি করে বিদ্যালয়ের মাঠ ও শ্রেণীকক্ষ পরিচ্ছন্ন রাখতে হয়,
🌼 দেখালাম কি করে সঠিক নিয়মে হাত ধুতে হয়,
🌼 আর সব শেষে আমরা বিদ্যালয়ের চত্তরে ১০টি মহামূল্যবান গাছ রোপন করি (৫টি ফলজ ৫টি বনজ)।
🌼 আকই সাথে গ্রুপের একজন সম্মানীত দাতার সৌজন্যে আমরা স্কুল কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেয়া হয় ৪টি বক্স ফ্যান।
“পরিচ্ছন্ন শিক্ষাঙ্গন কার্যক্রম” – যার মাধ্যমে আমরা ছড়িয়ে দিতে চাই পরিচ্ছন্নতার বার্তা একেবারে কোমলমতি শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে তরুন যুবকটির কাছে। শিশুরা দেশের ভবিষ্যৎ আর এদেরকে যদি সঠিক শিক্ষা দেয়া যায় তারা সেই শিক্ষা ছড়িয়ে দিবে তাদের পরিবারে, বন্ধুদের মাঝে সর্বোপরী দেশের কল্যাণে। আমাদের মূল লক্ষ হলো একটি শিক্ষাঙ্গন পরিচ্ছন্ন হওয়া মানে এর সাথে সাথে যত শিক্ষার্থী আছে সকলের পরিবার ও তাদের নিজদের মানসিকতার পরিবর্তন করে সমগ্র নোয়াখালী জেলায় এই পরিচ্ছন্নতার বার্তা পৌঁছে দেয়া।
🌷

 

মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলায় পরিচ্ছন্ন কার্যক্রমঃ (ডিসেম্বর ২১, ২০১৯)
২০১৯ সালের সর্বশেষ পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রমে আজ ছিলাম আমরা সকাল ১০টায় মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা প্রাঙ্গণে। আমরা আজ পরিচ্ছন্নতার সাথে সাথে সব থেকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছি সচেতনতা নিয়ে। মেলা প্রাঙ্গণে বিভিন্ন স্টলে ও মেলা প্রাঙ্গণে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন লোকেশনে আমরা সচেতনতার দিক নির্দেশনার কিছু ছোট সাইন বোর্ড লাগিয়ে দিয়েছি। হুম জানি ভীষণ ক্ষুদ্র একটি কাজ এই বিশাল মেলার তুলনায়। তবুও আত্মতৃপ্তি খুব সামান্য হলেও কিছু একটা করার চেষ্টা করেছি। দু একজন মানুষও যদি লেখাগুলো পড়ে সচেতন হন তাতেই আমাদের পরিতৃপ্তি। ধন্যবাদ সকল টিম মেম্বারদের যারা আজ ছিলেন মেলা প্রাঙ্গণে। সকলের সহযোগিতায় একদিন সুন্দর পরিচ্ছন্ন একটি জেলা হবে নোয়াখালী।

নতুন বছরে নতুন বই উৎসব আরডিএন এর সাথেঃ (জানুয়ারি ০১, ২০২০)

আজ একটা নতুন বছর। নতুন দিন শুরু। এই দিনে বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এক চমৎকার উদ্যোগে বিতরণ করা হয় সারা দেশের সকল স্কুলে বিনামূল্যে পাঠ্যবই বিতরণ। আরডিএন তাই বেছে নিলো এই দিনটা। কারন কথায় আছে বছরের প্রথম দিন সুখ বিলালে সারা বছর সুখে কাটে। আমাদের ইচ্ছে ছিলো এমন কিছু দিয়ে ২০২০ সাল শুরু করা যাতে আমাদের টিম মেম্বার যারা আছে তারা পুরোনো বছরের সকল দুঃখ, কষ্ট, হতাশা ভুলে গিয়ে একদম নতুন ভাবে শুরু করতে পারে নতুন উদ্যোমে। আর তাই এই সুন্দর শুরুতে কচিকাঁচাদের চেয়ে মোক্ষম উপলক্ষ আর কিইবা হতে পারে? আমাদের একটা উদ্যোগ ছিলো সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণের কিন্তু তাতে একটা সমস্যা ছিলো খুঁজে খুঁজে ছাত্র/ ছাত্রী বের করতে হতো। আর আমরাও চাচ্ছিলাম এমন কিছু করতে যাতে এক ঝাঁক শিশু কিশোরকে এক সাথে পাওয়া যায় যাতে করে একসাথে অনেকগুলো হাঁসি দেখতে পাই আমরা। এই সব কিছুর মেল বন্ধন ঘটাতে গিয়ে খুঁজে পেলাম প্রিয় বাপ্পী ভাইদের ❤ পরিচালত স্কুল আজিজুর রহমান খান, এবিএম সাইফুল্লাহ টিসিএম শিশু নীড়। যা ছিলো আমাদের চাওয়া আর পাওয়ার সমন্বয়। যাই হোক প্রায় পুরো একটা দিন কাটালাম আমরা এই স্কুলের বাচ্চাদের সাথে। সরকারের পাঠ্যবই এর সাথে সাথে আমরা প্রত্যেক ছাত্র/ ছাত্রীর হাতে তুলে দিয়েছি বেশ কিছু শিক্ষা উপকরণ যা আশা করি প্রায় অর্ধ বার্ষিক প্রয়োজনীয়তা মেটাবে তাদের। আমরা তাদের হাতে তুলে দিয়েছি খাতা বানানোর কাগজ, কলম, পেন্সিল, ইরেজার ইত্যাদি। একই দিনে আমরা তাদের সচেতন করেছি বাল্যবিবাহ, নিরাপদ সড়ক, ডেংগু ও পরিচ্ছন্নতা নিয়ে। গ্রুপের বেশ কজন ডোনারের সহায়তায় ও আমাদের গ্রুপের একঝাঁক অন্তপ্রাণ ভলেন্টিয়ারদের ❤ কল্যাণে আজকের এই অনুষ্ঠান চমৎকার ভাবে শেষ হলো। বিশেষ ধন্যবাদ জানাই আমাদের আরডিএন গ্রুপের নিয়মিত ডোনারদের ❤ আশা করি একই ভাবে ২০২০ সালে আরডিএন আরো অনেক বেশি কাজে সংযুক্ত হবে।

❤ আজকের শিক্ষা উপকরণ বিতরণের স্থানঃ
আজিজুর রহমান খান, এবিএম সাইফুল্লাহ টিসিএম শিশু নীড় ১ ও ২ (দুটি স্কুল)
জাহানাবাদ, দানা মিয়ার বাজার, ১১নং নেওয়াজপুর, নোয়াখালী
❤ ছাত্র/ ছাত্রীর সংখ্যাঃ ২৫০জন

পরিচ্ছন্ন নোয়াখালী কার্যক্রম – শহীদ মিনার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০
হুম ঠিক দেখছেন মাত্র এই পাঁচজন মিলেই এই পুরো শহীদ মিনারে ফেলে যাওয়া আবর্জনা পরিস্কার করেছে।। কেনো করেছে জানেন?? শুধুই নিজ জেলার নিজ শহরের ও নিজ সংগঠন এর প্রতি সামান্যতম দায়বদ্ধতা থেকেই তাদের এই অস্থিরতা যে না যে করেই হোক পরিচ্ছন্ন করতে হবে শহীদের বেদী।। আমরা সাধারনত শহীদ মিনারে ফুল দেই না কারন এইটাই চাইনা সেই ফুল দিন শেষে ময়লায় রূপ নেয়। আমরা অপেক্ষায় থাকি কখন একুশের আড়ম্বর শেষ হবে, আর আমরা ছুটে যাবো প্রিয় শহীদের স্মৃতিস্তম্ভ পরিচ্ছন্ন করবো।
পর পর দুই বছর আমরা এই পরিচ্ছন্নতার কাজ করছি।। ভালোই লাগে ছোট ছোট মানুষ হয়েও বিশাল একটা কাজ করতে পারি কেমন জানি দেশ প্রেম অনুভুত হয়। কাজ শেষে মনে হয় ঐ দূর থেকে নিশ্চয়ই সালাম, রফিক, বরকত, জব্বর আরো যারা শহীদ হয়েছেন নাম না জানা তারা ফিক করে মুচকি হেসে দিয়েছেন। আর কি লাগে বলেন?? এটাই প্রাপ্তি আমাদের।। এটাই আমাদের দায়বদ্ধতা।।

ভালোবাসার আরডিএন
#একুশে_ফেব্রুয়ারি_২০২০

সুন্দরের সাথে আরডিএন, পরিচ্ছন্নতার সাথে আরডিএন – ১৪ই ফেব্রুয়ারিঃ

২১শে ফেব্রুয়ারি ২০২০ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আরডিএন আয়োজন করেছিলো চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার। অংশগ্রহণ করেছে বেশ ভালো সংখ্যক শিশু-কিশোর। চিত্রাঙ্কন নিয়ে আমাদের এটি ২য় আয়োজন। এই প্রতিযোগিতের মূল বিষয় ছিলো একুশ, বাংলাদেশ ও মুক্তিযুদ্ধ। প্রথম শ্রেণি থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত ছাত্র/ছাত্রীরা এতে অংশগ্রহণ করে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসার দিনে তাদের অঙ্কনের মাধ্যমে ভালোবাসা ছড়িয়ে দিতে। বাচ্চাদের উৎসাহ দেখে সত্যিই আপ্লুত হয়েছিলাম আমরা। আমাদের টিমের যারা ছিলো স্বেচ্ছাসেবী হিসাবে তারাতো বাচ্চাদের পেয়ে প্রচন্ড আনন্দিত, কেউ কেউ আবার বলছিলো বাচ্চাদের সাথে একটা বিকাল কাটানো ছিলো তাদের জীবনের স্মরণীয় ঘটনা। ২জন বিচারক শুরু থেকে শেষ অব্দি উপস্থিত ছিলেন এবং সুচারুরূপে তাঁদের খাতায় স্বযতনে লিখে নেন বাচ্চাদের ফলাফল।
চিত্রাঙ্কন প্রদর্শনী, পুরস্কার বিতরনী ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণঃ ২১শে ফেব্রুয়ারি ২০২০
এবারের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসটি একটু ভিন্ন ভাবে পালন করলো আরডিএন। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে অনুষ্ঠিত হয়েছিলো আরডিএন এর আয়োজনে শিশু কিশোরদের অংশগ্রহণে দেশাত্ববোধক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা। মোট ২টি বিভাগে প্রায় অর্ধশত শিশু কিশোর অংশগ্রহণ করে এই প্রতিযোগিতায়। এছাড়া আমাদের গ্রুপে চলছিলো তিনটি বিভাগে মোট ৩ ধরনের প্রতিযোগিতা (কবিতা লেখা, ছবি তোলা ও গান গাওয়া) সেখানেও প্রায় ৫০ এর অধিক প্রতিযোগি অংশগ্রহণ করে। এ সকল প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ও শিশু কিশোরদের অঙ্কিত চিত্র প্রদর্শনী ছিলো গতকাল ২১শের মহান দিনে মাইজদিতে বিজয় মঞ্চের পাশে কচিকাঁচার প্রাঙ্গণে। বিকাল ৪টা থেকে ৭টা অব্দি প্রথম বারের মতো নোয়াখালীতে এই চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। বিপুল সংখ্যক মানুষের সমাগম হয় এই আয়োজনে। বাচ্চারা নিজেদের অঙ্কিত ছবির পাশে দাঁড়িয়ে, কখনো একা, কখনো বাবা মায়ের সাথে আবার কখনো আমাদের টিম মেম্বারদের সাথে ছবি তুলে এই দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখে। এইদিন আমরা মোট চিত্রাঙ্কনের ২ বিভাগে ৬জন বিজয়ী অনলাইন প্রতিযোগিতায় ৩ বিভাগে ৩জন বিজয়ীকে ও একজন সুবিধাবঞ্চিত ছাত্রকে একজন প্রবাসী ভাইয়ের সৌজন্যে ডিগ্রি প্রথম বর্ষের এক সেট বই, খাতা ও কলম প্রদান করি। মাত্র ৩ ঘন্টা ব্যাপী এই আয়োজন সত্যিই আমাদের জন্য একেবারেরই ভিন্ন মাত্রার ছিল। একই সাথে একটি অনলাইন ভিত্তিক সংগঠনের ব্যানারে এই শিক্ষামূলক আয়োজন আগত দর্শনার্থীদের ও অভিভাবকদের ভূয়সী প্রশংসা কুড়িয়েছে। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই আমরা বিভিন্ন শিক্ষামূলক কাজ করে যাচ্ছি এবং আরডিএন এভাবেই বিভিন্ন শিক্ষামূলক কাজ করে যেতে চায় আগত দিনেও।

রয়েল ডিস্ট্রিক্ট নোয়াখালী – আরডিএন গ্রুপের কার্যক্রমের মধ্যে একটি নিয়মিত কার্যক্রম হলো রোজায় অসহায় মানুষের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা। গত ৩ বছর আমরা নিয়মিত ভাবে এই ইফতার সামগ্রী বিতরণ করে যাচ্ছি এবারো তার ব্যক্তিক্রম নয়। আমাদের ভলেন্টিয়াররা নিজ নিজ এলাকায় খুঁজে খুঁজে মোট ৫৩টি পরিবারের তথ্য সংগ্রহ করেছেন যারা একেবারেই সহায়হীন, দরিদ্র ও দিন মজুর যাদের দৈনিক শ্রম বন্ধ হওয়ায় পুরো পরিবার পড়েছেন বিপাকে। আর তাই আমরা আরডিএন এগিয়ে এসেছি এই মানুষগুলোর জন্য সামান্য সাহায্য নিয়ে- ২৫ রোজার সমপরিমান ইফতার ও সেহরি সামগ্রী নিয়ে। মোট ৫৩টি পরিবারের মাঝে এই ইফতার ও সেহরি সামগ্রী বিতরণ করা হয় ৫ম রোজার দিন।

� আমরা কাউকেই এক জায়গায় জড়ো হতে বলিনি বরং আমাদের স্বেচ্ছাসেবীরা সবার বাড়িতে গিয়ে গিয়ে এই উপহার পৌঁছে দিয়েছে।

� প্রাথমিক ভাবে আমাদের আরো কম টার্গেট থাকলেও গ্রুপের নিয়মিত ডোনার ও শুভানুধ্যায়ীদের সহযোগিতায় আমরা ৫৩ পরিবারকে সহায়তা দিতে পেরেছি। ধন্যবাদ সকল অনুদান দাতাকে যারা আমাদের আরডিএন গ্রুপের উপর টানা ৪বছর অবিচল আস্থা রেখেছেন।

� নোয়াখালী জেলার চৌমুহনী, মাইজদি বাজার, মাইজদী স্টেশন, মাইজদী কোর্ট, পুলিশ লাইন, লক্ষ্মীনারায়ণপুর, বিনোদপুর, রাজারামপুর, সোনাপুর, খলিফার হাট, আক্তারমিয়ার হাট, সুবর্ণচর, চর রমিজ এলাকার মানুষের মাঝে এই সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

� এবারের রোজা অন্য সকল বারের চেয়ে ভীষন অন্য রকম। এবার মানুষের সহায়তা লাগছে বেশি। সকলে এগিয়ে এলে আপনার দেয়া অনুদান দিয়ে আরডিএন পৌঁছে দিবে দরিদ্র মানুষের মাঝে উপহার। আমরা এখনো অনুদান নিচ্ছি কারন আমাদের সামনে রয়েছে ঈদ আর এই ঈদে আপনার সহায়তা পারে একটি পরিবারের ঈদের দিনের খুশি আকাশসম করে দিতে। আপনি চাইলে একটি পরিবারের ঈদের দিনের দায়িত্ব নিতে পারেন। আপনার দেয়া সামান্য উপহার তাঁদের জন্য ঈদের দিনে ঈদের চাঁদের মতোই আনন্দ বয়ে আনবে এই কামনা করি।

� বিভিন্ন জায়গায় বিতরণের কারনে ছবিগুলো একসাথে তোলা যায় নি। অনেকেই ছবি তুলতে চায় নি, আমরাও কাউকে জোর করিনি ছবি তুলতে এখানে যা আছে তাঁদের অনুমতি নিয়েই এই ছবি তোলা হয়েছে এবং আমরা ক্ষেত্র বিশেষে কিছু ছবিতে চেহারা দেখা যাওয়ায় এই খানে দেই নি।

ঈদের ৫দিনে লাইভ আড্ডাঃ ২৩ থেকে ২৭শে মে ২০২০
অংশগ্রহণ করেন নোয়াখালীর বিভিন্ন পেশার গুণী মানুষজন। উপস্থিত ছিলেন ফটোগ্রাফার, কর্পোরেট কর্মী, ফ্রিল্যান্সার, সঙ্গীত শিল্পী, নোয়াখালির বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপের এডমিনরা, ডাক্তার, ম্যাজিস্ট্রেট, করোনা জয়ী দুজন যোদ্ধা ও বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে গ্রুপের বেশ কজন শুভাকাংখী। ৫দিনের এই জমজমাট ঈদ আড্ডা নোয়াখালী জেলার ফেসবুক গ্রুপগুলোর মধ্যে প্রথম এবং বেশ সাড়া ফেলে।

শেষকথা

আমরা আমাদের সদস্যদের প্রতি কৃতজ্ঞ, যারা সর্বদা আমাদের সহায়তা করে আসছেন এবং আশা করি তাদের সহায়তার মাধ্যমে আমরা একটি স্বনির্ভর দেশ ও জাতি গড়ে তুলতে সক্ষম হব।

Related posts

Leave a Comment